ExamBD

একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ICT: ২য় অধ্যায় পর্ব ১

১. কমিউনিকেশন কী?
উ: এক পক্ষ হতে অন্য পক্ষে কোনো মাধ্যম দ্বারা তথ্য প্রবাহের প্রক্রিয়াকে কমিউনিকেশন বা যোগাযোগ বলা হয়।

২. মডুলেশন কী?
উ: ডিজিটাল সংকেতকে এনালগ সংকেতে পরিবর্তনের প্রক্রিয়াকে মডুলেশন বলে।

৩. প্রোটোকল কী?
উ: প্রোটোকল হচ্ছে নিয়মকানুন যা কমিউনিকেটিং ডিভাইসগুলো মেনে চলে।

৪. চ্যানেল কী?
উ: যার মধ্য দিয়ে ডেটা উৎস হতে গন্তব্যে স্থানান্তরিত হয় তাকে মাধ্যম বা কমিউনিকেশন চ্যানেল বলে।

৫. ব্যান্ডউইডথ কী?
উ: একটি নির্দিষ্ট সময়ে চ্যানেল দিয়ে যে পরিমাণ ডেটা স্থানান্তরিত হয় তার পরিমাণকে ব্যান্ডউইথ হিসেবে পরিমাপ করা হয় ।

৬. ন্যারোব্যান্ড কী?
উ: যে ব্যান্ডে ডেটা স্থানান্তরের গতি সাধারনত সৰ্বনিম্ন ৪৫ bps থেকে সর্বোচ্চ ৩০০ bps পর্যন্ত হয়ে থাকে তাকে ন্যারোব্যান্ড বলে।

৭. ভয়েস ব্যান্ড কী?
উ: যে ব্যান্ডে ডেটা স্থানান্তরের গতি সাধারনত সৰ্বনিম্ন ১২০০ bps থেকে সর্বোচ্চ ৯৬০০ bps পর্যন্ত হয়ে থাকে তাকে ভয়েসব্যান্ড বলে।

৮. ব্রড ব্যান্ড কী?
উ: উচ্চ গতিসম্পন্ন যে ব্যান্ডে ডেটা স্থানান্তরের গতি সাধারণত সর্বনিম্ন ১ MbpS থেকে সর্বোচ্চ কয়েক Gbps পর্যন্ত হয়ে থাকে তাকে ব্রডব্যান্ড বলে ।

৯. ডেটা ট্রান্সমিশন মেথড কী?
উ: যে পদ্ধতিতে এক ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে ডেটা স্থানান্তর বা ট্রান্সমিট হয় তাকে ডেটা ট্রান্সমিশন মেথড বলা হয়।

১০. প্যারালাল ট্রান্সমিশন কী?
উ: যে ডেটা ট্রান্সমিশনের পদ্ধতিতে কাছাকাছি অবস্থিত ডিভাইসগুলোর মধ্যে একটি ক্যারেক্টারের সবগুলো বিট একসাথে সমান্তরালভাবে একই ক্লক পালসে স্থানান্তরিত হয় তাকে প্যারালাল ট্রান্সমিশন বলে।

১১. সিমপ্লের কী?
উ: ডেটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে ডেটার একদিকে প্রবাহকে সিমপ্লেক্স  মোড বলা হয়।

১২. হাফ-ডুপ্লেক্স কী?
উ: যে পদ্ধতিতে ডেটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে প্রেরক ও প্রাপক উভয়দিক থেকে ডেটা প্রেরণ করা যায়, তবে একই সময়ে তা সম্ভব নয় তাকে হাফ ডুপ্লেক্স ট্রান্সমিশন মোড বলে।

১৩. ফুল-ডুপ্লেক্স কী?
উ: যে পদ্ধতিতে ডেটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে প্রেরক ও প্রাপক উভয় দিক থেকে একই সময়ে ডেটা প্রেরণ ও গ্রহণ করা যায় তাকে ফুল ডুপ্লেক্স ডেটা ট্রান্সমিশন মোড বলে।

১৪. ইউনিকাস্ট মোড কী?
উ: যে ট্রান্সমিশন পদ্ধতিতে একজন প্রেরক থেকে একজন প্রাপকের মধ্যে ডেটা আদান-প্রদান হয়ে থাকে তাকে ইউনিকাস্ট ট্রান্সমিশন
মোড বলা হয়।

১৫. মাল্টিকাস্ট মোড কী?
উ: মান্টিকাস্ট হলো নেটওয়ার্কভুক্ত এমন একটি ডেটা ট্রান্সমিশন পদ্ধতি, যেখানে প্রেরক কম্পিউটার (বা নোড) হতে ডেটা ট্রান্সমিট হলে তা গ্রুপভুক্ত অনুমোদিত নোড বা নোডসমূহই (প্রাপক) গ্রহণ করতে পারবে।

১৬. EMI কী?
উ: ইলেকট্রনিক ডিভাইসসমূহ ওয়্যারলেস রেডিও ফ্রিকোয়েন্সির চৌম্বকীয় প্রভাবের কারণে যে অনাকাডিক্ষত নয়েজ তৈরি করে এবং তাতে ডেটা ট্রান্সমিশনে যে বাঁধা সৃষ্টি হয় তাকে ইলেকট্রোম্যাগনেটিক ইন্টারফেয়ারেন্স । বা ইএমআই বলে।

১৭. টুইস্টেড পেয়ার কেবল কী?
উ: টেলিফোন লাইনের কানেকশন বা স্বল্প খরচে কম দূরত্বে নেটওয়ার্ক তৈরির জন্য যে ক্যাবলটি ব্যবহার হয় সেটিই হলো টুইস্টেড পেয়ার ক্যাবল ।

১৮. UTP কী?
উ: ইউটিপি ক্যাবল মূলত একাধিক জোড়া টুইস্টেড পেয়ারের সমষ্টি, যা আবার প্লাস্টিক আবরণে মোড়ানো থাকে।

১৯. কানেক্টর কী?
উ: কানেক্টর হলো এক ধরনের ফিজিক্যাল ইন্টারফেস যা বিভিন্ন কপার- কেবল বা অপটিক ফাইবারসমূহের মাধ্যমে বিভিন্ন
টেলিকমিউনিকেশন ডিভাইসমূহকে নেটওয়ার্কে সংযুক্ত করতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

২০. ফাইবার অপটিক কেবল কী?
উ: ফাইবার অপটিক বা অপটিক্যাল ফাইবার হলো অত্যন্ত সরু এক ধরনের কাচের তন্তু। ডাই-ইলেকট্রনিক অন্তরক পদার্থ দিয়ে
তৈরি এই কাচের তন্তুর মধ্যে দিয়ে আলোর গতিতে ডেটা আদান প্রদান করা যায়।

২১. কোর কী?
উ: কোর হলো অপটিক ফাইবারের সবচেয়ে ভেতরের স্তর,  যার মধ্য দিয়ে আলোক সিগন্যাল সঞ্চালন করে ।

২২. নেটওয়ার্ক ব্যাকবোন কী?
উ: ব্যাকবোনের জন্য কমিউনিকেশন চ্যানেল হিসেবে ক্যাবল ব্যবহার করা হলে এ ক্যাবলকে সাধারণভাবে ব্যাকবোন হিসেবে অভিহিত করা হয়।

২৩, ইলেকট্রোম্যাগনেটিক স্পোরট্রাম কী?
উ: ইলেকট্রোম্যাগনেটিক স্পেকট্রাম হলো তড়িৎ চুম্বকীয় তরঙ্গের রেঞ্জ বা ব্যাপ্তি  যেটি জুড়ে শূন্য বা বায়ু মাধ্যমে ইলেকট্রোম্যাগনেটিক রেডিয়েশন বা তরঙ্গ শক্তিটি অবস্থান করে।

২৪. মাইক্রোওয়েভ কী?
উ: ইলেকট্রাম্যাগনেটিক স্পেকট্রামের ৩০০ মেগাহার্জ (MHz) থেকে ৩০০( GHz) পর্যন্ত ট্রিকোয়েন্সি ব্যান্ডকে মাইক্রোওয়েভ বলে।

২৫. ওয়্যারলেস কমিউনিকেশন সিস্টেম কী?
উ : কোনো প্রকার তার ব্যবহার না করে একাধিক ডিভাইসের মধ্যে ডেটা আদান-প্ৰদান তথা যোগাযোগ করার পদ্ধতিকে ওয়্যারলেস কমিউনিকেশন সিস্টেম বলা হয়।

২৬. ব্লুটুথ কী?
উ : ব্লুটুথ হলো স্বল্প দূরত্বের (১০ মিটারের কাছাকাছি) ভেতর বিনা খরচে ডেটা আদান-প্রদানের জন্য বহুলপ্রচলিত ওয়্যারলেস প্রযুক্তি।

২৭. ওয়াই-ফাই কী?
উ: ওয়াই-ফাই হলো জনপ্রিয় একটি ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কিং প্রযুক্তি, যেটি তারবিহীন উচ্চগতির ইন্টারনেট ও নেটওয়ার্ক সংযোগে বেতার তরঙ্গকে ব্যবহার করে থাকে।

২৮. ওয়্যারলেস অ্যাকসেস পয়েন্ট কী?
উ : ওয়্যারলেস একসেস পয়েন্ট এমন একটি হার্ডওয়্যার কম্পোনেন্টকে বোঝায়, যেটি আসলে তারযুক্ত নেটওয়ার্কে সংযুক্ত
ডিভাইসটির নেটওয়ার্ক কানেকশনের সাথে তারবিহীন বা ওয়্যারলেস সুবিধাসম্পন্ন ডিভাইসকে সংযুক্ত করে।

২৯. হটস্পট কী?
উ: হটস্পট হলো এক্সেসেবল ওয়্যারলেস নেটওয়ার্কের সাপোর্ট সমৃদ্ধ কোনো একটি এলাকা, যেখান থেকে সংশ্লিষ্ট ডিভাইসের সাহায্যে খুব সহজেই ইন্টারনেট এক্সেস করা যায়।

৩০.NFC কী?
উ: NFC হলো এমন এক সেট স্ট্যান্ডার্ড যা রেডিও সিগন্যাল ব্যবহার করে খুব কাছাকাছি (৪ থেকে ১০ সে.মি) বা পরস্পরের সংস্পর্শে থাকা দুটি ডিভাইসের মধ্যে তারবিহীন উপায়ে তথ্য আদান প্রদানের জন্য ব্যবহৃত হতে পারে ।

৩১. জিগবি কী?
উ: জিগবি হলো উচ্চস্তরের যোগাযোগ প্রোটোকলগুলোর জন্য IEEE ৮০২.১৫.৪-ভিত্তিক আদৰ্শমানের একটি প্রযুক্তি যা কম বিদ্যুৎ শক্তির বেতার ডিভাইসগুলোর মধ্যে পার্সোনাল এরিয়া নেটওয়ার্ক (PAN) তৈরিতে ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

৩২. মোবাইল কমিউনিকেশন কী?
উ: একাধিক চলনশীল ডিভাইস অথবা একটি চলনশীল ও অন্যটি স্থির ডিভাইসের মধ্যে ডেটাতথ্য আদান-প্রদান এর জন্য ব্যবহৃতকমিউনিকেশন সিস্টেমকে মোবাইল কমিউনিকেশন বলা হয়।

SUBSCRIBE TO OUR NEWSLETTER

Seorang Blogger pemula yang sedang belajar

0 Response to "একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির ICT: ২য় অধ্যায় পর্ব ১"

Post a comment

চাকরির প্রস্তুতি সহায়ক বই
চাকরির খবর
বিসিএস রিভিউ

View All

সাম্প্রতিক প্রশ্নোত্তর

View All